ঢাকা, শনিবার ২৫ নভেম্বর ২০১৭  ,
১৯:৩৭:৫৮ জুন  ২২, ২০১৭ - বিভাগ: সম্পাদকীয়


ঈদের যাত্রা নিরাপদ হোক

সরকারের সড়ক বিভাগের সংস্কার কাজ আরো দুই মাস আগে শুরু হলে খুবই সময়োপযোগী হতো। ঈদকে সামনে রেখে যদি সড়ক-মহাসড়কগুলো আরো কিছুদিন আগে সংস্কার ও নির্মাণ-কাজ শেষ করা যেত তাহলে ভোগান্তির মাত্রা অনেক কমে আসত

সপ্তাহখানেক ধরে ঢাকা থেকে ঘরে ফেরা মানুষের ঢল দেশের উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চলের মহাসড়কগুলো ছেয়ে ফেলেছে। তবে প্রকৃত ঢল গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে। এবার বর্ষা যেন একটু আগেভাগে শুরু হয়েছে। দেশের অনেক সড়ক প্রবল বৃষ্টিতে পানির নিচে সাময়িকভাবে তলিয়ে গেছে। আবারো রোদ উঠলেও মাঝে মাঝেই বৃষ্টি হচ্ছে। অনেক সড়কে সংস্কার কাজ চলছে। প্রতিবছরের মতো এবারো প্রশাসন থেকে বলা হয়েছিল ঈদে ঘরে ফেরা মানুষের এ বছর কোন অসুবিধা হবে না। তার পরও গত কয়েকদিনে রাজধানী থেকে বের হবার বেশ কয়েকটি পয়েন্টে দীর্ঘ যানজট দেখা গিয়েছে। ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের কালিয়াকৈরের চন্দ্রা মহাসড়কে ৬০ কিলোমিটারব্যাপী যানজট দেখা গিয়েছে। অভিজ্ঞমহল আশংকা করছে প্রকৃত অবস্থা বোঝা যাবে আজ শুক্রবার থেকে।
ইতিমধ্যে যারা ঘরে ফিরতে শুরু করেছে, তাদের বাসের বহর রাজধানী থেকে বের হয়ে যাবার এগারোটি বিভিন্ন পয়েন্টে থেকে থেকে জ্যামের মুখে পড়ছে বলে খবর এসেছে। গাজীপুরের চন্দ্রা ত্রিমোড় এলাকা দিয়ে অনেক বাস ঘুরে সিলেট ও একইসাথে উত্তরবঙ্গ চলে যায়। এখানে চার-লেন প্রকল্পের কাজ চলছে। এ কারণে সব বাস ও গাড়ি অত্যন্ত ধীর গতিতে চলছে। সৃষ্টি হচ্ছে যানজট। নারায়ণগঞ্জের ভুলতা, দাউদকান্দি ব্রিজ, মেঘনা ব্রিজ টোল প্লাজা, কাঁচপুর ব্রিজ, বঙ্গবন্ধু সেতুর টোল প্লাজা, আরিচা ফেরীঘাটসহ বেশ কয়েকটি পয়েন্টে দেখা দিয়েছে দীর্ঘ জট। এসব স্থানে সড়কের দুই ধারের জল সড়কে জমা হয়েছে। অনেক স্থানে সড়কের বিটুমিন উঠে গেছে। বৃষ্টির পানি জমে সৃষ্টি হয়েছে খানাখন্দ। এ ছাড়াও দেশের অনেক মহাসড়কের সংস্কার কাজ সম্প্রতি শুরু হয়েছে। গাড়ির গতি ধীর হবার এটিও একটি প্রধান কারণ। ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়ক এখনো অনেক স্থানে ভাঙা ও খানাখন্দের মধ্যে জল জমে যানবাহনগুলোর স্বাভাবিক চলাচলে বিঘ্নের সৃষ্টি করছে। সরকারের সড়ক বিভাগের সংস্কার কাজ আরো দুই মাস আগে শুরু হলে খুবই সময়োপযোগী হতো। ঈদকে সামনে রেখে যদি সড়ক-মহাসড়কগুলো আরো কিছুদিন আগে সংস্কার ও নির্মাণ-কাজ শেষ করা যেত তাহলে ভোগান্তির মাত্রা অনেক কমে আসত।
ইতিমধ্যে দেশের উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চলে মানুষ ঘরে ফেরা শুরু করেছে। প্রতি ঈদে সড়ক পথে, রেলে ও জাহাজে কয়েক লক্ষ মানুষ ঢাকা ছেড়ে যায়। ঈদশেষে ঢাকায় ফেরে। বেশ কয়েক বছর ধরেই তারা পথে যানজটে নাকাল হয়। সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেবার কথা বলা হলেও ফলাফল যুৎসই হয় না। এবারও আমরা তেমন বড় কিছু সরকারের কাছ থেকে আশা করি না। তবে মানুষ যেন নিরাপদে বাড়িতে ঈদ করতে যেতে পারে ও নিরাপদে কর্মস্থলে আসতে পারে প্রশাসন সে দিকটাই নিরাপদ করবে এটুকুই আমাদের প্রত্যাশা।


সম্পাদকীয়'র অন্যান্য খবর

©সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি