ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৭  ,
১০:০৩:০৪ জুন  ২২, ২০১৭ - বিভাগ: আন্তর্জাতিক


দিনে জেলে, রাতে হাসপাতালে কারনান

Image

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে বুধবার সকালে বিমানবন্দর থেকে কলকাতা হাইকোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি চিন্নাস্বামী কারনানকে নিয়ে যাওয়া হয় প্রেসিডেন্সি সংশোধনাগারে। জেলে ঢোকার সময়ে শরীর কিছুটা ভালো থাকলেও, জেল সুপারের ঘরে বসার পর থেকেই তার হাসিটা মিলিয়ে যায়।


হাসপাতালের চিকিৎসকেরা তার রুটিন ‘চেকআপ’ করেন। পরে তার শরীর খারাপ লাগলে রাতের দিকে এসএসকেএম-এ নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কার্ডিওলজি বিভাগে ‘ইকো’ করা হয় চিন্নাস্বামী কারনানের। পরে আবার আনা হয় প্রেসিডেন্সি জেলে।

কারা দপ্তরের এককর্মী জানান, ‘অফিসারেরা কথা বলার চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু উনি সে ভাবে কথাই বলছিলেন না। মুখটা খুব শুকনো ছিল। বোধহয় শরীর খারাপ লাগছিল।’

কারনান অনেক দিন থেকেই ডায়াবেটিস, হৃদরোগ এবং উচ্চ রক্তচাপের সমস্যায় ভুগছেন। সে ব্যাপারে খোঁজখবর নেওয়ার পরে হাসপাতালেই তাকে বিশ্রাম নেওয়ার পরামর্শ দেন ভারপ্রাপ্ত জেলের চিকিৎসক। কিন্তু সাতটা নাগাদ হঠাৎই বুকে যন্ত্রণা হচ্ছে বলে চিকিৎসককে জানান কারনান। তিনি কারনানকে দেখার পরে আর কোনও ঝুঁকি না নিয়ে সাড়ে সাতটা নাগাদ এসএসকেএম হাসপাতালে পরীক্ষা করার জন্য পাঠিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। তার পরেই তাকে এসএসকেএমে পাঠান প্রেসিডেন্সি জেল কর্তৃপক্ষ।

কলকাতা হাইকোর্টের এই প্রাক্তন বিচারপতি আসবেন বলে গতকাল সকাল থেকেই সাজো সাজো রব ছিল প্রেসিডেন্সি জেল-চত্বরে। দুপুর তিনটার কিছু পরে কারনানকে নিয়ে প্রেসিডেন্সি জেলে এসে পৌঁছায় পুলিশের গাড়িবহর। সাধারণত নতুন বন্দি জেলে এলে আমদানি ওয়ার্ডে রাখা হয়। কিন্তু একজন প্রাক্তন বিচারপতি বলে কথা! তাই কারনানকে নিয়ে যাওয়া হয় জেল সুপারের ঘরে।

আন্তর্জাতিক'র অন্যান্য খবর

©সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি