ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৯ অক্টোবর ২০১৭  ,
২৩:৩৭:৫৪ জুন  ১৮, ২০১৭ - বিভাগ: রাজশাহী


শিশুকে হত্যার পর ঘরেই মাটিচাপা!

পাবনা প্রতিনিধি

পাবনার সুজানগর উপজেলার আমিনপুরে পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধের জেরে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে প্রতিপক্ষের এক শিশুকে পিটিয়ে হত্যার পর ঘরের মেঝেতে পুঁতে রাখার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। গত শনিবার গভীর রাত আড়াইটার দিকে পুলিশ আমিনপুর থানার আলাদীপুর গ্রাম থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করেছে। ওই শিশুর নাম হাফিজুল ইসলাম (৮)। সে আলাদীপুর গ্রামের রজব আলীর ছেলে। আটক ব্যক্তি হলেন একই গ্রামের দুলাল মল্লিক (৪০)। আমিনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তাজুল হুদা জানান, পাওনা টাকা নিয়ে আলাদীপুর গ্রামের রজব আলী ও দুলাল মল্লিকের মধ্যে বিরোধ চলছিল। এর জেরে গত শনিবার বিকেল ৫টার দিকে দুজনের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে রজব আলীর আট বছরের শিশুসন্তান হাফিজুলকে একা পেয়ে তাকে বাড়িতে নিয়ে মারধর করে দুলাল মল্লিক ও তার ছেলে সেলিম মল্লিক। এতে শিশু হাফিজুল মারা যায়। এরপর উপায়ন্তর না পেয়ে শিশুটির লাশ নিজের শয়নকক্ষে মাটির নিচে পুঁতে রাখে দুলাল মল্লিক। ওসি আরও জানান, বিকেল থেকে হাফিজুলকে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি শুরু করে পরিবারের লোকজন। রাত ২টার দিকে পুঁতে রাখা শিশুর লাশ তুলে বাড়ির বাইরে নিয়ে ফেলে দেওয়ার সময় দুলাল মল্লিক ও তার স্ত্রীকে গণধোলাই দেয় স্থানীয় লোকজন। এ সময় তাদের ছেলে সেলিম মল্লিক পালিয়ে যায়। তাজুল হুদা বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে ঘটনাস্থল থেকে শিশু হাফিজুলের লাশ উদ্ধার করে। এ সময় দুলাল মল্লিককে আটক করা হয়। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে।


রাজশাহী'র অন্যান্য খবর

©সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি