ঢাকা, শনিবার ২৫ নভেম্বর ২০১৭  ,
১৫:১৩:৫৪ জুন  ০৯, ২০১৭ - বিভাগ: রাজনীতি


‘লুটপাটের জন্য সরকারের এই বাজেট’

Image

জনগণের পকেট কেটে অর্থ লুটপাটের জন্যই যে এই বাজেট প্রণীত হয়েছে তা এখন সুস্পষ্ট বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। শুক্রবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয় হলো-ব্যাংক লেনদেনে আবগারি শুল্ক ধরা হয়েছে যার নজীর পৃথিবীর কোথাও নেই। এই আত্মঘাতি সিদ্ধান্তটি নেয়া হয়েছে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সামান্য জমানো টাকাতেও হাত দেয়ার উদ্দেশ্যে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

অর্থমন্ত্রীর সমালোচনা করে রিজভী বলেন, আবগারি শুল্ক নিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেছেন এক লাখ টাকা যাদের আছে তারা সম্পদশালী। অথচ উনিই একসময় বলেছিলেন, চার হাজার কোটি টাকা মানে কিছুই না। আসলে দুর্নীতিবাজ সরকার ও তার মন্ত্রীরা হিতাহিত জ্ঞান হারিয়ে ফেলছেন, তাই তারা জনগণকে নিয়ে এমন তামাশা বা রসিকতা করতে পারেন। আসলে অর্থ লেনদেনের বেআইনী ফাঁকটি আরও প্রসারিত করার জন্যই সরকার সাধারণ মানুষের এক লাখ টাকা সঞ্চয়ের উপর হস্তক্ষেপ করছে। এছাড়াও বিভিন্ন পণ্যের উপর ধরা হয়েছে ১৫ শতাংশ ভ্যাট, যার খড়গ সরাসরি নেমে আসবে জনগণের ওপর।

আওয়ামী লীগ সরকারের দুর্নীতির কথা তুলে ধরে বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, ২০০৯ সালে আওয়ামী ক্ষমতা নেয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত পাল্লা দিয়ে যেভাবে ক্ষমতাসীনদের লুটপাট আর দুর্নীতি চলছে তা বাংলাদেশের ইতিহাসে নজীরবিহীন। গতকালও ভোটারবিহীন সংসদের এমপি’রা বলেছেন-ব্যাংক থেকে হাজার হাজার কোটি লুটপাট করে দেশ থেকে পাচার করে দেয়া হচ্ছে। তাদের বক্তব্যে লুটপাটের কথা শুনে দেশবাসী আরো বেশি বিস্মিত হয়েছেন। লুটপাটের কারণে বাংলাদেশ ব্যাংক সহ সমস্ত আর্থিক খাত আজ শূন্য গহ্বর হয়ে গেছে। সমাজের প্রতিটি সেক্টরে দুর্নীতি বাসা বেধেছে। জোর জবরদস্তি করে মানুষের সম্পদ দখল আওয়ামী লীগের নেশায় পরিণত হয়েছে। নিয়োগ ও বদলি বাণিজ্য চলছে মহাসমারোহে।

নিত্যপণ্যের দাম বৃদ্ধি নিয়ে তিনি বলেন, চাল-ডাল-লবন-তেল থেকে শুরু করে নিত্য প্রয়োজনীয় সকল পণ্যের দাম বাড়িয়ে হাজার হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা। বাণিজ্যমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছিলেন-রমজানে নিত্য প্রয়োজনীয় কোন দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধি পাবে না, অথচ এমন কোন জিনিস নেই যারমূল্য দেড় গুণ থেকে দ্বিগুণ বৃদ্ধি পায়নি। তিনি কথা রাখতে ব্যর্থ হয়েছেন।


রাজনীতি'র অন্যান্য খবর

©সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি